সব খবর সবার আগে।

পাহাড়ি মানুষের প্রাণ বাঁচাতে IAF-র প্রাক্তন পাইলট বানিলেন ভেন্টিলেটর, খরচ মাত্র ৩৫০০ টাকা

পাহাড়ি মানুষরা চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে সর্বদা খুব ত্রস্ত থাকেন। রাতবিরেতে কোনো চিকিৎসার দরকার পড়লে কোথায় যাবেন বুঝতে পারেন না। ভেন্টিলেশনে রাখার প্রয়োজন পড়লে তো রীতিমত দুশ্চিন্তা শুরু হয়ে যায়। কিন্তু এবার পাহাড়ি মানুষদের দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তি দিতে বায়ুসেনার এক বিশ্বরেকর্ডধারী পাইলট তৈরি করে ফেললেন ভেন্টিলেটর। নাম দিয়েছেন অ্যাম্বু-ব্যাগ। যার জন্য খরচা পড়েছে মাত্র ৩৫০০ টাকা।

এই ভেন্টিলেটর তৈরি করেছেন হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইনস্টিটিউট-এর ডিরেক্টর জয় কিষণ ও সেখানকার কয়েকজন কর্মী। পাহাড়ের অ্যাম্বুলেন্স ও গ্রামে ওই ভেন্টিলেটর ব্যবহার হচ্ছে।

এই ভেন্টিলেটর চলবে ব্যাটারি কিংবা বিদ্যুতে। একটি মোটরের সাহায্যে হাতে বানানো এই অ্যাম্বু ব্যাগ সঠিক পরিমাণে ও নির্দিষ্ট চাপে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে। যন্ত্রটি তৈরী করতে খরচ পড়েছে সাড়ে তিন হাজার টাকা।

হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইনস্টিটিউট এর কর্মীরা জানিয়েছেন যে, জয় কিষণ যুদ্ধবিমান চালিয়েছেন। ওঁনার ফিজিক্স ব্যাকগ্রাউন্ড ছিল তাই কাজ করতে সুবিধা হয়েছে। অন্যদিকে, জয় কিষণের কথায়, “ভাবনা ছিল মানুষের প্রাণ বাঁচানো ও খরচ কমানো। সেটাই করেছি।’

পশ্চিমবঙ্গে পার্বত্য এলাকায় প্রচুর গ্রাম রয়েছে যেখানে সঙ্কটজনক রোগীকে চট করে অ্যাম্বুলেন্সে হাসপাতালে নিয়ে আসা বেশ কষ্টকর। সেখানে এই ভেন্টিলেটর যে এবার পাহাড়ি মানুষদের প্রাণ বাঁচাতে সহায়তা করবে সে কথা বলাই বাহুল্য।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...