সব খবর সবার আগে।

চলতি মাসেই মহা শিবরাত্রি! জেনে নিন এই দিনের বিশেষ পৌরাণিক মাহাত্ম্য

হিন্দু ধর্মে মহা শিবরাত্রির গুরুত্ব অনেক। এই দিনে দিনভর চলে নানান ধর্মীয় রীতি ও আচার-অনুষ্ঠান। এই দিনে শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে নানান মেলাও হয়। মন্দির তো বটেই, নানান বাড়িতেও এই দিনে শিব পুজো করেন অনেকেই। ‘হর হর মহাদেব’ ধ্বনি তুলে অনেকে এবার তারকেশ্বর মন্দিরে গিয়ে বাবার মাথায় জল ঢালেন।

এদিন নানান শিব মন্দিরে নানান ভক্তদের সমাগম লক্ষ্য করা যায়। এই শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে স্বামীর মঙ্গল কামনা করে বিবাহিতা মহিলারা শিবের উপোস করেন। সারাদিন নির্জলা উপোস করে শিবের মাথায় জল ঢালেন। শুধু বিবাহিতা মহিলা নন, এদিন অনেক অবিবাহিতা মহিলা, এমনকি অনেক পুরুষও নিষ্ঠা ভরে শিবের ব্রত পালন করেন। অবিবাহিতা মহিলারা শিবের মতো বর পাওয়ার জন্য এই ব্রত করে থাকেন বলে অনেকে মনে করেন। তবে এই দিনের বিশেষ কী গুরুত্ব রয়েছে, তা কী জানেন? আসুন জেনে নিই-

মাঘ মাসে কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে শিবরাত্রি পালন করা হয়। এই ‘শিবরাত্রি’ কথাটি এসেছে ‘শিব’ ও ‘রাত্রি’ থেকে অর্থাৎ শিবের জন্য রাত্রি। এই শিবরাত্রির সঙ্গে অনেক মত প্রচলিত রয়েছে।

আরও পড়ুন- পুলিশ কমিশনারকে চিঠি বিজেপির, পোস্টাল ব্যালেটে কারচুপির অভিযোগ পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে

  • শিবরাত্রির ব্রতকথা অনুযায়ী, এক শিকারি এদিন বনের মধ্যে ঘুরতে ঘুরতে কোনও শিকার না পেয়ে ক্লান্ত হয়ে একটি বেলগাছের ডালে আশ্রয় নেন। খেয়াল না করেই তিনি বেলপাতা ছিঁড়ে নীচে ফেলতে থাকেন। আর সেই গাছের নীচেই ছিল একটি শিবলিঙ্গ। বেলপাতা পেয়ে তুষ্ট হন মহাদেব এবং তাঁকে আশীর্বাদ করেন।
  • আবার, পুরাণ মতে দেবী পার্বতীর সঙ্গেএদিন দেবাদিদেব মহাদেবের বিবাহ হয়। শোনা যায় এদিন থেকেই বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ড সৃষ্টি হয়েছিল।
  • আরও একটি প্রচলিত কথা লোকমুখে প্রচলিত রয়েছে। এদিন নাকি দেবতা ও রাক্ষসদের সমুদ্র মন্থনের ফলে ভ্যাঙ্ক কালকূট বিষ উঠে আসে। সেই সময়ে বিষের প্রভাব পরে ধরণীতেও।  সেই জ্বালায় ছটফট করতে শুরু করে বসুন্ধরার সকলে।  এই সময়ে মহাদেব নিজেই সেই বিষ পান করেন এবং তাঁর কণ্ঠ নীল হয়ে যায়। সেই জন্যেই তাঁর আরেক নাম ‘নীলকণ্ঠ’। সেই জন্যে এই তিথিতে শিবরাত্রি পালিত হয়।

সাধারণত, ফেব্রুয়ারি বা মার্চ মাসেই শিবরাত্রির তিথি পড়ে। এই বছর ১১ই মার্চ, বৃহস্পতিবার মহা শিবরাত্রির তিথি পড়েছে। এদিন দুপুর ২.৪২ মিনিটে শুরু হচ্ছে শিবরাত্রির তিথি। চতুর্দশী ছাড়বে পরদিন অর্থাৎ ১২ই মার্চ দুপুর ২.৪১ মিনিটে।

You might also like
Comments
Loading...