সব খবর সবার আগে।

চাপের মুখে পড়ে চীনা মোবাইল সংস্থা ভিভোকে টাইটেল স্পনসর থেকে সরালো আইপিএল কর্তৃপক্ষ!

গত রবিবার আইপিএলের বোর্ড মেম্বারদের বৈঠকে বলা হয়েছিল, আগামী আইপিএল টুর্নামেন্টে ভিভো-ই থাকছে প্রধান স্পনসর। এরপরই দেশজুড়ে মানুষ এই সিদ্ধান্তের তুমুল সমালোচনা শুরু করেন। আজ ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই আইপিএল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, স্পনসরশিপ থেকে বাদ দেওয়া হল চীনা সংস্থা ভিভোকে।

আইপিএলের প্রধান স্পনসরশিপ থেকে নাম সরিয়ে দেওয়া হলেও চীনা মোবাইল সংস্থা ভিভোর সাথে আগামী তিন বছরের চুক্তি বাকি রয়েছে কর্তৃপক্ষের। তাই এই মুহূর্তে পুরোপুরি বিচ্ছেদ ঘটছে না ভিভোর সাথে। আপাতত এমন উত্তাল পরিস্হিতিতে এ বছর টাইটেল স্পনসর হিসেবে থাকছে না ভিভো। বোর্ডের তরফ থেকে আরও জানানো হয়েছে, খুব শীঘ্রই নতুন স্পনসরের নাম ঘোষণা করবে তারা।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত আইপিএলের সাথে চুক্তি করেছে চীনা ফোন নির্মাণকারী সংস্থা ভিভো।

প্রসঙ্গত, গত জুন মাসে চীনের অতর্কিত আক্রমণে ভারতীয় ২০জন জওয়ান শহীদ হন। তারপর থেকে ভারতের মানুষ চীনা দ্রব্য বয়কটের ডাক দেয়। চীনের তৈরি জিনিস থেকে চীনের প্রযুক্তি সব কিছুই এখন বাদের তালিকায়। এমতাবস্থায় গত রবিবার আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হিসেবে চীনা সংস্থা ভিভোকে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় বোর্ড। তারপরই দেশের সর্বস্তরের মানুষের চরম সমালোচনার মুখে পড়তে হয় বিসিসিআইকে। এমনকি চারিদিক থেকে আইপিএল বয়কটের দাবিও ওঠে।

তাই কি তড়িঘড়ি নিজেদের সিদ্ধান্ত বদল করল আইপিএল কর্তৃপক্ষ? চীনা সংস্থা ভিভোর নাম শোনার পর থেকেই বিতর্কের ঝড় ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাই খানিকটা চাপের মুখে পড়েই হয়তো নতিস্বীকার করল কর্তৃপক্ষ এবং শেষ অবধি সরে গেল ভিভোর নাম। এ বিষয় বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশ জুড়ে যখন মানুষ চীনকে একজোট হয়ে বয়কট করছেন তখন নিজেদের ভাবমূর্তি বাঁচাতেই সিদ্ধান্ত বদলাতে হল কর্তৃপক্ষকে।

You might also like
Leave a Comment