সব খবর সবার আগে।

বিরাট পার্থক্য! পুরো পাকিস্তান দলের থেকে বেশি একা ভারত অধিনায়ক এর বেতন!

পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সঙ্গে নতুন করে চুক্তিবদ্ধ হল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। বুধবরাই ২১ জন ক্রিকেটারের সঙ্গে নতুন চুক্তির একটি ফরমান জারি করা হয়েছে পাকিস্তান বোর্ডের তরফে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের মতোই A,B,C ক্যাটেগরি রয়েছে পাক বোর্ডেও। আর সেখানেই ধরা পড়েছে দুই দেশের ক্রিকেটারদের বেতনের আসমান-জমিন পার্থক্য। A ক্যাটেগরিতে রয়েছেন বাবর আজম, আজহার আলি এবং শাহীন শাহ আফ্রিদির মতো প্লেয়াররা। তাঁদের বেতন অন্যদের তুলনায় বেশ কিছুটা বেশি। এ ছাড়াও প্রোমশন, ডিমোশন, প্র্যাকটিসে অপেক্ষাকৃত বেশি অনুপস্থিতির হারেও বেশ কিছুটা কমানো হয়েছে পাক ক্রিকেটারদের বেতন।

বিভিন্ন ক্যাটেগরিতে পাক ক্রিকেটারদের বর্তমান বেতন –

A ক্যাটেগরি: প্রতি মাসে ১.১ মিলিয়ন PKR (পাকিস্তানি টাকা) বা ৬,৭৯৮ মার্কিন ডলার। এই হিসেবটাই বছরে ১৩.২ মিলিয়ন PKR বা ৮১,৫৭৬ মার্কিন ডলার।

B ক্যাটেগরি: মাসিক ৭৫০.০০০ PKR বা ৪,৬৩৫ মার্কিন ডলার। বছরে এই হিসেবটাই দাঁড়াচ্ছে ৯ মিলিয়ন PKR বা ৫৫, ৬২৭ মার্কিন ডলার।

C ক্যাটেগরি: প্রতি মাসে ৫৫০,০০০ PKR বা ৩,৪০০ মার্কিন ডলার। আর বছরের হিসেবে ৬.৬ মিলিয়ন PKR বা ৪০,৭৯৩ মার্কিন ডলার।

অন্য দিকে BCCI-এর চুক্তিতে ক্রিকেটারদের মোট চারটি ক্যাটেগরিতে ভাগ করা হয়। পাকিস্তানের মতোই থাকে A,B,C তার সঙ্গে আরও একটি ক্যাটেগরি হল A+।

দেখে নেওয়া যাক ভারতীয় ক্রিকেটারদের বর্তমান বেতন –

গ্রেড A+: বাৎসরিক ৭ কোটি টাকা অর্থাৎ ৯২৭,৩৩৬ মার্কিন ডলারের চুক্তি।

গ্রেড A: এই গ্রেডে প্লেয়ারদের সঙ্গে বছরে ৫ কোটি টাকা বা ৬৬২,৩৮৩ মার্কিন ডলারের চুক্তি সাক্ষরিত হয়।

গ্রেড B: ৩ কোটি টাকা বা ৩৯৭,৪৩০ মার্কিন ডলারের বার্ষিক চুক্তি করা হয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে।

গ্রেড C: ১ কোটি টাকা অর্থাৎ ১৩২,৪৭৬ মার্কিন ডলারের বার্ষিক চুক্তি হয় এই C গ্রেডের ক্রিকেটারদের সঙ্গে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য- চলতি বছরের ১৪ মে অবধি মুদ্রার হারের নিরিখে এই হিসেব কষা হয়েছে। (যেখানে ১ মার্কিন ডলার = ১৬১.৭৯ পাকিস্তানি টাকা = ৭৫.৫২ ভারতীয় টাকা)

এখন এই হিসেবেই যদি পাকিস্তানের ক্রিকেট বোর্ডে A ক্যাটেগরি এবং ভারতীয় বোর্ডে গ্রেড A-র পরিসংখ্যান ধরা হয়, তাহলেই দুই বোর্ডের ক্রিকেটারদের বার্ষিক এবং মাসিক বেতনের তারতম্য খুব পরিষ্কার হয়ে যাবে। পাকিস্তানের A ক্যাটেগরিতে সেরা তিন ক্রিকেটারের মোট বেতন যেখানে ২৮০,০০০ মার্কিন ডলার। ঠিক সেখানেই BCCI ভারতের A+ গ্রেডের একজনকেই দিচ্ছে ৪০০,০০০ মার্কিন ডলার। অর্থাৎ বাবর আজম, আজহার আলি এবং শাহীন শাহ আফ্রিদির মতো প্লেয়াররা মোট যা টাকা বোর্ডের কাছ থেকে বেতন হিসেবে পান, ভারতের বিরাট কোহলি বা রোহিত শর্মা বা যশপ্রীত বুমরাহ– এই তিনজনের যে কোনও একজনকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তার থেকেও বেশি টাকা বেতন দেয়।

এ ছাড়াও আর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো PCB তাঁদের সব ক্রিকেটারদের পিছনে তিনটি ক্যাটেগরি মিলিয়ে মোট ১৫৭ মিলিয়ন PKR বরাদ্দ করেছে। এ দিকে BCCI-এর কাছ থেকে বিরাট কোহলি একাই তার থেকে বেশি টাকা বাৎসরিক বেতন পান।

You might also like
Comments
Loading...