খেলাফুটবল

আইএফএ-এর কারণে ইস্টবেঙ্গলে ফের ক্লাব ও ইনভেস্টর জট

আরও একবার শুরু হল ইস্টবেঙ্গলের ক্লাব ও ইনভেস্টর জট। জানা গিয়েছে, কন্যাশ্রী কাপের বিষয়ে যাবতীয় চিঠি এসসি ইস্টবেঙ্গলের নামে লেখা হলেও তা পাঠানো হচ্ছে না ইনভেস্টরদের কাছে। সমস্ত কিছু পাঠানো হচ্ছে ক্লাব সচিব কল্যাণ মজুমদারের কাছে। এর ফলেই ক্লাব কর্তাদের উপর ক্ষোভ জমতে শুরু করেছে ইনভেস্টর কর্তাদের। আইএফএ নাকি কন্যাশ্রী কাপ নিয়েও কোনও তথ্য জানায়নি ইনভেস্টরদের, সবটাই জানেন ক্লাব কর্তারা।

অন্যদিকে এক প্রকার অপরাধ করার অভিযোগ উঠল ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, কন্যাশ্রী কাপের ফাইনালে ভিনরাজ্যের ফুটবলার খেলিয়েছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। অভিযোগ এনেছে সেমিফাইনালে হেরে যাওয়া পুলিস এসি দল। তারা সরাসরি আইএফএ এর কাছে আবেদন করেছিল। অভিযোগ যাচাই করে ইস্টবেঙ্গলের ফাইনালে যাওয়া আটকে দিল আইএফএ। সেই কারণে আবারও হাওড়া স্টেডিয়ামে সেমিফাইনাল খেলতে নামবে এই দুই দল।

সেমিফাইনালে যে ভিনরাজ্যের মহিলা ফুটবলার খেলেছেন তার নাম মীনা খাতুম, এই নামটি রয়েছে সিআরএসে। গত মরশুমে তিনি মুম্বইয়ের ফুটবলার ছিলেন। কিন্তু এই বছর এফিডেভিডের মাধ্যমে নাম ও স্থান পরিবর্তন করে মীনা বেগম করেন, স্থান কলকাতা। কন্যাশ্রী কাপ সম্পর্কে ইনভেস্টর কর্তারা অবগত না হওয়ায় দুই বার ভিনরাজ্যের ফুটবলার খেলানোর বিষয়টিও জানতেন না তারা।

এই নিয়ে ইনভেস্টরের এক কর্তার কথায়, “কন্যাশ্রী কাপ নিয়ে ক্লাব কর্তারা আমাদের সাথে খুব বেশি আলোচনা করেনি। দল গঠন তো দূর, আমাদের জানানোই হয়নি কি জার্সি পড়ে তারা খেলবে। এভাবে অসহযোগিতা আর কতদিন চলবে। আইএফএ এই প্রতিযোগিতা নিয়ে আমাদের সাথে কোনও যোগাযোগ করেনি।”

Related Articles

Back to top button