সব খবর সবার আগে।

#World Sparrow Day: ক্রিকেটের সাথে সম্পর্কিত চড়ুইয়ের ইতিহাসও, না জানলে পড়ুন

 

আজ ওয়াল্ড স্প্যারো ডে, অর্থাৎ বিশ্ব চড়ুই দিবস গোটা বিশ্বজুড়ে পালিত হচ্ছে। এটি প্রতি বছর ২০ মার্চ পালিত হয়। এর উদ্দেশ্য হল চড়ুই পাখি সংরক্ষণ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। আসলে এই পাখিটি গত কয়েক বছর ধরে ধীরে ধীরে বিলুপ্ত হতে চলেছে। একটা সময় ছিল যখন আমরা প্রতিদিন সকালে এই পাখির ডাক শুনতাম, কিন্তু আজ এই পাখির অস্তিত্বই বিলুপ্ত প্রায়।

চড়ুইয়ের এই অবস্থার বিবেচনায় ২০১০ সাল থেকে বিশ্বজুড়ে পালিত হচ্ছে ‘ওয়ার্ল্ড স্প্যারো ডে’। তবে আপনি কি জানেন যে এই দুর্দান্ত পাখির ইতিহাস ক্রিকেটের সাথেও সম্পর্কিত? যদি তা না জানেন তবে এই আকর্ষণীয় কাহিনীটি পড়ুন। এই কাহিনী ১৯৩৬ সালের, আমাদের দেশ তখন স্বাধীন ছিল না। ১৯৩৬ সালে ইংল্যান্ডের লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি) এবং কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটি ক্রিকেট ম্যাচ চলছিল।

আরও পড়ুন: আইপিএলের নির্দেশিকা প্রকাশ বিসিসিআইয়ের, কোয়ারান্টাইন বিষয়ক কি নিয়ম থাকছে? জানুন

এই ম্যাচে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে খেলছিলেন ভারতের জাহাঙ্গীর খান। ম্যাচ চলাকালীন জাহাঙ্গীর যখন বোলিং করছিলেন, হঠাৎ তাঁর হাতে এসে একটি চড়ুই পড়েছিল। জাহাঙ্গীরের বল দ্বারা ওই চড়ুই পাখিটি গুরুতর আহত হয় এবং এর পরেই মারা যায়। তারপরে ওই চড়ুইটিকে সেই বলের সাথে লর্ডস মিউজিয়ামে রাখা হয়েছিল। যার পরে তার নাম রাখা হয়েছিল ‘স্প্যারো অফ লর্ডস’।

আরও পড়ুন: স্ত্রীর সাথে জসপ্রীত বুমরাহের ছবি শেয়ার, পুরনো টুইট মনে করিয়ে ট্রোল অনুগামীদের

লক্ষণীয় বিষয় যে স্বাধীনতার আগে ভারতের হয়ে চারটি টেস্ট খেলা জাহাঙ্গীর খান ভারতীয় দলের নির্বাচকও ছিলেন। তবে দেশ ভাগের পর তিনি পাকিস্তানে চলে যান। পাকিস্তানেও তিনি ক্রিকেটের সাথে যুক্ত ছিলেন এবং কিছু সময়ের জন্য পাক জাতীয় দলের নির্বাচকও ছিলেন।

You might also like
Comments
Loading...