রাজ্য

Bengal Assembly: আর কেউ? বিকল্প বাড়িয়ে বাংলা বিধানসভায়  লড়তে আসছে শিবসেনা! ‘জয়বাংলা’ ডাক দিলেন উদ্ধব

বাংলার রাজনীতি এবার দেশীয় রাজনীতির মানচিত্র ছুঁতে চলেছে! একের পর এক ‘বহিরাগত’ দল এবার বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে লড়তে আসছে। বিহার নির্বাচনের পরই ‘মিম’ প্রধান আসাউদ্দিন ওয়েইসি ঘোষণা দিয়েছিলেন বাংলায় ভোট কাটতে আসবেন তিনি। আর এবার বিধানসভা নির্বাচনের হাতে গোনা দুই মাস আগে শিবসেনার সেকেন্ড ইন কম্যান্ড সঞ্জয় রাউত টুইটারে ঘোষণা করলেন উদ্ধব ঠাকরের সিদ্ধান্তে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে লড়তে আসছে শিবসেনাও।

সঞ্জয় রাউত লিখেছেন, দলীয় প্রধান উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে আলোচনার পর স্থির হয়েছে, বাংলার বিধানসভা ভোটে শিবসেনাও প্রার্থী দেবে।খুব শিগগির কলকাতায় আসছি। জয় হিন্দ, সঙ্গে জুড়ে দেন জয় বাংলাও!

প্রসঙ্গত বেশ কয়েক মাস আগে মেদিনীপুরের বেশ কয়েক জায়গায় শিবসেনার পতাকা দেখা গিয়েছিল। তখন থেকেই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল তবে কি এবারের বিধানসভা নির্বাচনে লড়বে বাল ঠাকরে প্রতিষ্ঠিত দল? আশঙ্কা সত্যি হলো।

তবে অন্য একটি আশঙ্কার কথা‌ও উড়িয়ে দিচ্ছেন না রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা! মমতার সঙ্গে কি জোট গড়ার পথে শিবসেনা? মহারাষ্ট্রের জোট সরকারের সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক যতটা তেতো বিজেপির ততটায় ভালো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ারের সঙ্গে রীতিমতো ফোনে কথাবার্তাও হয় মমতার। স্বাভাবিক ভাবে হাওয়ার প্রশ্নটা ঘুরছে, তাহলে কি কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলা? তাহলে কি বিজেপি রুখতেই শিবসেনা তাস?

প্রসঙ্গত বাংলার রাজনীতিতে একেবারেই আনকোরা শিবসেনা। মহারাষ্ট্রের বাইরে এই দলটার যে সেই রকম কোন‌ও শক্তি নেই তা বলা বাহুল্য।

এবং তা বিহার বিধানসভা নির্বাচনেই পরিলক্ষিত হয়েছে। বিহারেও বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছিল শিবসেনা। কিন্তু খুব ভালো ফল  হয়নি। নোটার থেকেও কম ভোট পায় তাঁরা।

তবে পশ্চিমবঙ্গের প্রেক্ষাপট বিহারের থেকে কিছুটা হলেও ভিন্ন। রাজনৈতিক মহলের মত, এই রাজ্যে মুসলিম ভোটার  ২৭ শতাংশেরও বেশি। সেই ভোটব্যাঙ্কে বরাবর আস্থা রেখেছে তৃণমূল। তবে এইবার ছবিটা বদলাতে পারে। আব্বাস সিদ্দিকি এবং আসাদুদ্দিন ওয়েইসির দল আসছে সেই ব্যাঙ্কে ভাগ বসাতে। মুসলিম ভোট ভাগ নিয়ে যখন রাজনৈতিক মহলের জল্পনা, তখনই রাজ্যে পা রাখতে চলেছে শিবসেনা, যাদের মূল অ্যাজেন্ডাই আবার হিন্দুত্ববাদ। কিন্তু সেখানে রয়েছে বিরোধী দল বিজেপি। এই ভোটকাটাকাটির খেলায় শাসক তৃণমূল এবং প্রধান বিরোধী বিজেপি দুই দল কতটা হারায়, আর কতটা পায় সেটাই এখন দেখার।

Related Articles

Back to top button