সব খবর সবার আগে।

নীট পরীক্ষায় ৭২০তে ৭২০, তবুও শোয়েব এবং আকাঙ্ক্ষার র‌্যাঙ্ক কেন ভিন্ন?

গতকাল ঘোষণা হয়েছে নীট পরীক্ষার ফলাফল। সেখানে ৭২০তে ৭২০ পেয়ে প্রথম হয়েছে ওড়িশার শোয়েব আফতাব। কিন্তু দ্বিতীয় স্থানাধিকারী দিল্লির আকাঙ্ক্ষা সিং এর নম্বরও ৭২০! তাহলে সে কেন দ্বিতীয় স্থানে? এই নিয়ে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি (NTA) এর কার্যপ্রণালী সংক্রান্ত বিতর্ক শুরু হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে শুরু হয়েছে জোর তর্ক বিতর্ক। দুজনেই জেনারেল ক্যাটাগরির এবং দুজনেই সব বিষয়ে সমান নম্বর পেয়েছে।তাহলে আকাঙ্ক্ষাকে যুগ্মভাবে প্রথম করা হলোনা কেন উঠছে প্রশ্ন। ‌

এখানে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির টাই ব্রেকিং পলিসি প্রয়োগ করা হয়েছে। যেখানে সমান নম্বর আসলে র্যাঙ্ক দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম নির্ধারণ করা হয়। এই পলিসি অনুযায়ী যদি দুজন পরীক্ষার্থীর সমান নম্বর পান তাহলে তাদের বায়োলজি আর কেমিস্ট্রিতে নম্বর দেখে র্যাঙ্ক নির্ধারিত করা হয়।

তারপরেও যদি কাজ না হয় তাহলে কে কটা প্রশ্নের উত্তর ভুল দিয়েছে সেটা যাচাই করা হয়।যদি এই নিয়মেও কাজ না হয়, তাহলে কে কত প্রশ্নের উত্তর ভুল দিয়েছে সেটার ভিত্তিতে রাঙ্ক নির্ধারিত করা হয়।যেহেতু শোয়েব এবং আকাঙ্ক্ষা দুজনেরই নম্বর সমান এবং দুজনেই কোন প্রশ্নের উত্তর ভুল দেয়নি তাই এক্ষেত্রে তাদের সংখ্যায় পার্থক্য হওয়ার সম্ভাবনা নেই।দুজনের কেমিস্ট্রি এবং বায়োলজিতে ও নম্বর সমান-সমান হয়েছে। এক্ষেত্রে যার বয়স বেশি র্যাঙ্ক উপরে রাখা হয়।

শোয়েবের বয়স ১৮ বছর তাই তাকে প্রথম স্থান দেওয়া হয়েছে।অন্যদিকে আকাঙ্ক্ষা শোয়েবের থেকে ছোট তাই সে পেয়েছে দ্বিতীয় স্থান। যদিও এই অদ্ভুত নিয়ম সহজে মেনে নিতে পারছেন না নেট বাসীরা তবু এটাই ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির নিয়ম এবং এটাকেই মানতে হবে।

এই বছর নীট এর পরীক্ষায় ১৫.৯৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছে। এদের মধ্যে ৭ লক্ষ ৭১ হাজার ৫০০ জন পাশ করেছে। পরীক্ষা দেওয়ার ১৩.৬ লক্ষ পড়ুয়াদের মধ্যে ৮.৮ লক্ষ কন্যা পড়ুয়া। ইংরাজি সমেত ১১ টি ভারতীয় ভাষায় নীট এর পরীক্ষা হয়েছে।

Comments
Loading...
Share