সব খবর সবার আগে।

ছাদে উঠে কলেজছাত্রীর সম্ভ্রমহানির চেষ্টা তৃণমূল নেতার, বাঁচাতে গিয়ে খুন হলেন মা

এবার বাগনানে সামনে এল তৃণমূলের হাড়হিম করা অত্যাচারের কাহিনী। কলেজ ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা এক তৃণমূল নেতার, তাকে বাধা দেওয়ায় ছাত্রীর মাকে খুন করল সেই নেতা। গোটা ঘটনায় স্তম্ভিত সবাই।

ভয়ঙ্কর এই ঘটনাটি ঘটেছে বাগনানে। আক্রান্ত কলেজছাত্রীর বক্তব্য মঙ্গলবার রাতে ছাদে বসে ফোনে বন্ধুর সঙ্গে বার্তালাপ-এ ব্যস্ত ছিলেন তিনি। সেই সময় হঠাৎ ছাদে উঠে পড়ে স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যের স্বামী কুশ বেরা। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাঁকে পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে কুশ। আতঙ্কে চিৎকার করে ওঠেন ওই কলেজছাত্রী। মেয়ের চিৎকার শুনে দৌড়ে ছাদে আসেন মা। তখন কুশ তাঁকে ধাক্কা দিলে সিঁড়ি থেকে পড়ে যান তিনি। সিঁড়ি থেকে পড়ে গিয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পান ওই মহিলা। তাকে প্রথমে বাগনান গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় কিন্তু সেখানে ক্রমশ অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।

এরপর এই এলাকায় পরিস্থিতি ঘোরালো হয়ে ওঠে। বুধবার সকাল থেকে অভিযুক্ত কুশ বেরার গ্রেফতারের দাবিতে বাগনান থানার সামনে ভিড় জমাতে থাকে স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ও লকেট চট্টোপাধ্যায়। সৌমিত্র খাঁ’র নেতৃত্বে বাগনানের খাদিনামোড়ে ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিজেপি যুব মোর্চা। বিজেপির দাবি পুলিশকে অবিলম্বে তৃণমূলের ওই নেতাকে গ্রেফতার করতে হবে। পুলিশ তাকে গ্রেফতার ও করেছে ইতিমধ্যে। বাগনান থানা সূত্রে জানা গিয়েছে ওই মহিলার দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে এবং কুশ বেরার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি ও খুনের মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

You might also like
Leave a Comment