সব খবর সবার আগে।

আগামী মরশুমেও ইস্টবেঙ্গলের কোচিং করাব আমি : আত্মবিশ্বাসী রিভেরা

ক্লাব তাকে আগামী মরশুমেও কোচ হিসাবে বহাল রাখবে, রীতিমত আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা গেল লাল হলুদ দলের স্প্যানিশ কোচ রিভেরার গলায়। তিনি রীতিমত আত্মবিশ্বাসী যে আগামী সিজনেও ক্লাব ম্যানেজমেন্ট তাকে ধরে রাখবে।

এই মরশুমের মাঝামাঝি দলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন রিভেরা। তাঁর অধীনে আই লিগে ইস্টবেঙ্গল যদিও খুব একটা ভালো ফল করেনি। ৪২ বছর বয়সী রিভেরা পিটিআইকে তার দেশে ফিরে যাওয়ার আগে একান্ত সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে, “আমি ইস্টবেঙ্গল কতৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি এবং আমি তাদের ভারতীয় খেলোয়াড়দের সম্পর্কে আমার পরামর্শ দিয়েছি। তারা অবশ্য পরের মরশুমের জন্য কোচ হিসাবে আমাকেই চায়।”

বেঙ্গালুরু-ভিত্তিক কোয়েস কর্প, যারা ইস্টবেঙ্গলের ইনভেস্টার ছিল তারা ইতিমধ্যেই এই করোনা মহামারির জন্য ‘ফোর্স ম্যাজিওর’ ধারা বাস্তবায়িত করেছে এবং ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে সমস্ত চুক্তিগুলি সমাপ্ত করেছে।

কোচ রিভেরার কথায়, “দল তৈরি করা এখন অনেক কঠিন কারণ COVID-19 অনেক কিছুই বদলেছে। আমি মনে করি, গত মরশুম থেকে যে দলগুলি প্রায় একই স্কোয়াড রাখবে, তাদের শুরুতে বড় সুবিধা হবে।”
তাঁর বক্তব্য, “একজন ভালো কোচের রেসিপি হল কঠোর পরিশ্রম এবং তার মধ্যে পরিচালনার আস্থা। আমি ভারতীয় ফুটবলে এই দুটি মরশুমের সমস্ত জ্ঞান নিয়ে একটি নতুন মরসুম শুরু করার কথা ভেবে খুব উত্তেজিত, আমি সত্যিই এটি করতে চাই।”

এবারের আই লিগে হারের হ্যাটট্রিক দিয়ে শুরু করেছিলেন প্রাক্তন লাল হলুদ কোচ আলেজান্দ্রো। এই আই লিগের প্রথম মোহন বাগানের ডার্বি ১-২ গোলে পরাজয়ের পরেই তিনি পদত্যাগ করেন। রিভেরা আলেজান্দ্রো মেনান্দেজের ডেপুটি হিসাবে ২০১৯ সালে ৩২ টি ম্যাচে কোচিং করিয়েছিলেন লাল হলুদে। মেনান্দেজের অধীনে কাজ করে রিভেরা মনে করেন রিয়াল মাদ্রিদ বি দলের প্রাক্তন কোচ দলটিকে ‘ধ্বংস’ করেছিলেন।

“আমি জানি না তিনি কী করেছিলেন, আমি জানি যে আমি একটি ধ্বংস হয়ে যাওয়া দল পেয়েছি, যারা আত্মবিশ্বাস ছাড়া একটি বড় চাপের মধ্যে ছিল। ফুটবল একটি দলগত খেলা এবং একটি দলে সমস্ত লোক খুব গুরুত্বপূর্ণ: পরিচালনা, কিটম্যান, ম্যাসাজার, ফিজিও, ডাক্তার, ড্রাইভার, অফিস। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলার মন্ত্রেই বিশ্বাসী আমি”, জানিয়েছেন এই স্প্যানিশ কোচ।

তিনি বলেন, মোহনবাগান খারাপ মরশুমের পরে একজন ভাল কোচকে বিশ্বাস করেছিল এবং তার ফল পেয়েওছে। এছাড়াও ইস্টবেঙ্গলের আইএসএলে খেলার ব্যাপারে তিনি প্রবল পক্ষপাতী। তার ধারণা ইস্টবেঙ্গলের আইএসএলে যোগদান টুর্নামেন্টের মর্যাদাকে অনেকটাই বাড়িয়ে তুলবে।

You might also like
Comments
Loading...